"ফিনিক্স পাখির মত ধ্বংসস্তূপ থেকে ফিরে আসবে জার্মানী"

  • বায়েজিদ খান
  • ০৩,ফেব্রুয়ারি,২০২৩ ১০:৪৮ PM


১৯৯০ সালের বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ইংল্যান্ডকে হারানোর পর সাবেক ইংলিশ ফুটবলার গ্যারি লিনেকার জার্মানিকে নিয়ে একটি বিখ্যাত কথা বলেছিলেন। 

কথাটি এমন যে, "ফুটবল একটি সহজ খেলা। ২২ জন খেলোয়াড় ৯০ মিনিট ধরে একটি বলের পেছনে দৌড়ায় এবং শেষ পর্যন্ত জার্মানরাই সব সময় জেতে"। 

এই বিশ্বকাপে জার্মানির পারফরম্যান্স হতাশাজনক।  জার্মানি বাদ পরে যাবে ,অনেকের স্টাটাস দেখছিলাম কয়েকদিন ধরে। সেই জার্মানী যারা কিনা ফুটবলের চূড়ান্ত আতঙ্ক! কারো বিপক্ষে নামলে প্রতিপক্ষের পা কাঁপবে না, এরকম টিম বর্তমানে নেই। 

সেই জার্মানি ৩- ৪ বছর ধরে তাদের মান অনুযায়ী খারাপ ফুটবল খেলেছে ,এর কারন হিসাবে অনেকেই পেপ গার্দিওলাকে বায়ার্ন মিউনিখের কোচ হিসেবে নিয়োগকে দায়ী করেছেন। যিনি টিকিটাকা খেলিয়ে পুরা পাওয়ার ফুটবলকে শেষ করে দিয়েছিলেন। 

কিন্তু আমাদের বিশ্বাস জার্মানি আবার তার পুরোনো রুপে ফিরে আসবে এবং সেটা খুব শিঘ্রীই। জামাল মুসালা,স্টারব্যাক,খিমিক , মুলুকু,ইদিয়ামিনি এরা দুনিয়ার সেরা ফুটবলার হয়ে উঠবে। আর নিয়মিত ট্রফি তো জার্মানি অনেকটা অভ্যেসে পরিনত করেছে । এই খারাপ সময়টা শিক্ষা হিসাবেই জার্মানি কাজে লাগাবে আমার বিশ্বাস। 

বাংলাদেশের কিছু সিজনাল  ফুটবল প্রেমিরা অন্যের পরাজয় দেখে মজা পায়।বাজে ভাবে ট্রল করে। যা অত্যান্ত নীচু মানের একটি কাজ। বাঙ্গালীর এই পরশ্রীকাতরতা নিয়ে বঙ্গবন্ধু ও বলে গেছেন। যা একটা রোগ। 

ফুটবল যারা ভালোবাসে ,তারা কোনদিন অন্য টীম কে নিয়ে বাজে ভাবে ট্রল করতে পারে না। ব্রাজিল ৭ গোল খেয়েছে তো কি হয়েছে ,তাদের ফুটবল কি শেষ হয়ে গেছে বরঞ্চ এই বিশ্বকাপের অন্যতম দাবিদার তারা। সেদিন আমারও খারাপ লাগছিলো ,একটা ফুটবল পাগল জাতিকে কাদতে দেখে ,আমার জন্য খুব সহজ ছিলো না। কিন্তু তারা এখনোও ফেবারিট। 

২০০৬,২০১০,২০১৪ টানা তিনবার আমি আর্জেন্টিনাকে জার্মানির কাছে হারতে দেখেছি,তাতে কি আর্জেন্টিনার ফুটবল শেষ হয়ে গেছে।  না হয় নি। এই খেলাটা এমনই। 

২০১৩ সাল আমার মনে আছে বায়ার্ন আর চেলসির ফাইনাল চলছিল চ্যাম্পিয়ন লীগে। 
তখন চেলসি বায়ার্নের ধারে কাছের টিম না। কিন্তু খেলার শেষ দিকে দ্রগবা গোল করে দেয়। চেলসি জিতে যায়। এটাই ফুটবল। 

জার্মানিকে ২০১০ ,২০০৬ সেমিফাইনালে হারতে দেখেছি তারা লড়াই করে হেরেছে। আবার ২০১৪ তে চ্যাম্পিয়ন হতে দেখেছি। এটাই ফুটবল । জার্মানি আবার তার আপন গতিতে ফিরে আসবে, প্রতিপক্ষের ডিফেন্স চুরমার করে গোল উৎসবে মেতে উঠবেন জামাল মুসাইলা, কিমিখ, মুলাররা ঠিক সেই  ধ্বংসস্তুপ থেকে পৌরাণিকের ফিনিক্স পাখির মত।

সম্পর্কিত খবর