মিশর থেকে পাকিস্তান ও আমেরিকার অবাধ্যতার শিক্ষা

  • বায়েজিদ খান
  • ১৭,মে,২০২২ ০১:৩০ PM

আমেরিকার রিজিম চেইঞ্জ পলিটিক্সের বিরুদ্ধে লক্ষ লক্ষ  মানুষ বিক্ষোভ  করছে পাকিস্তানে। এমনটি আগে কখনোই পাকিস্তানে দেখা যায়নি । 

সময় এখন পাকিস্তানের জনগনের,
সেনাবাহিনী থেকে আমারিকার দালাল জেনারেল বের করে বিচারের আওতায় আনা  এবং সিভিলিয়ান সরকারকে শক্তিশালী করা । 

এই দালাল সেনাবাহিনীর মাধ্যমে মিশরে বিপুল ভোটে ক্ষমতায় আশা মুরসিকে উৎখাত করেছিলো । মুরসি নিজেই একটা
ইতিহাস যে ইসরাইল বা আমেরিকার বাইরে গেলে তার পরিনতি কি হয় । 

পাকিস্তানের মত মিশরের ব্যাপারেও পশ্চিমা গনতন্ত্রের পতাকা বাহকরা চুপ ছিলো ।এটাই তাতে নীতি ,নিজেরা সিভিলাইজড থাকবে আর তৃতীয় বিশ্ব ,সেনাবাহিনীর পায়ের নিচে থাকবে ,যাতে পশ্চিমাদের দরকারি সব কিছু সহজে পেতে পারে । 
অনেকেই মনে করেন রাশিয়ার প্রতি ঝুকে যাওয়ার কারনে আজ ইমরান খানের এই পরিনতি ,যদি তাই হয় এর মানে কি দাড়ায় দেশ আপনার আর পররাষ্ট্র নীতি চালাবে আমেরিকা ।অনেকটা ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির মত ।আর এই কাজে আমেরিকার সহায়াতা করে এলিট সোসাইটি ,পাকিস্তানেও তাই হয়েছে এলিটরা ইমরানের বিরুদ্ধে ,আর মদ্যবিত্ত আর নিম্ন মধ্যবিত্তের বড় অংশ ইমরানের পক্ষে রাস্তায় নামছে । 

বিক্ষোভকারীরা স্লোগান দিয়ে বলতে থাকেন, ইমরান আরও শক্তিশালী হয়ে ফিরে আসবেন। অনাস্থা ভোটে সদ্য প্রধানমন্ত্রীত্ব হারানো ইমরান খানের ডাকে পাকিস্তানে ব্যাপক বিক্ষোভ হয়েছে। গতকাল রোববার রাতে দেশটির বিভিন্ন শহরে এ বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়। এতে ইমরান খানের তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) বিপুলসংখ্যক কর্মী-সমর্থক অংশ নেন। খবর ডন ও জিয়ো নিউজের। 

ইমরান খান অনাস্থা ভোটে তাঁকে ক্ষমতাচ্যুত করার পেছনে ‘বিদেশি ষড়যন্ত্র’ রয়েছে দাবি করে এ বিক্ষোভের ডাক দিয়েছিলেন। তাঁর ডাকে সাড়া দিয়ে রোববার পাকিস্তানি সময়,রাত সাড়ে নয়টার দিকে রাজপথে নেমে আসেন হাজারো সমর্থক । 

ইমরান খান ক্ষমতায় আশার আগে প্রতিশ্রুতি ,যে পাকিস্তান কে নরওয়ে বানাবেন কিন্তু ইমরানের আমলে তার কিছুই ঘটেনি।বরং পরিবর্তন আসেনি। বরং ইমরানের আশপাশের লোকজনের নামে বিভিন্ন সময় দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। এসবের বিরুদ্ধে কার্যকর কোন ব্যবস্থা নেননি ইমরান। এমনকি ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনালের বৈশ্বিক সূচকেও কাঙ্ক্ষিত উন্নতি করতে পারেনি পাকিস্তান। ডলার ১৮০ টাকা গিয়ে ঠেকেছে ।যা বিরোধীরা কাজে লাগিয়েছে । 

কিন্তু ইমরান বিরোধীদের বিদেশী মদদের কথা বলে গদি রক্ষা করতে চেয়েছিলেন ইমরান খান। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তাতে সফল হতে পারেনি তিনি। এর পেছনে দেশটির সুপ্রিম কোর্টের ভূমিকা ছিল মুখ্য। পার্লামেন্টে মধ্যরাতের অনাস্থা ভোটে হেরে বিদায় নিতে হয়েছে তাঁকে। 

তবে ইমরানের সামনে এখনও ফিরে আসার সুযোগ রয়েছে,পাকিস্তানের পত্রিকা ডনের বিশ্লেষণ তা ব্যাখা করার চেষ্টা করা হয়েছে ,
ডন মনে করে, আপাতত আগাম নির্বাচন না হলেও আগামী বছর পাকিস্তানে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। জনগণ চাইলে ওই নির্বাচনে জিতে আবারও ক্ষমতায় আসতে পারেন তিনি। এমন ঘটনা পাকিস্তানের ইতিহাসে আগেও ঘটেছে। তা না হলে অনেকের চোখে টিপু সুলতান বা নবাব সিরাজ উদ–দৌলার মতো একজন হয়ে উঠবেন ইমরান খান।

সম্পর্কিত খবর

পাকিস্তানের জয়রথ ছুটছেই
  • ২০,মে,২০২২ ০৩:৩১ PM