সুলতান পদক পেলেন চিত্রশিল্পী শহিদ কবীর

  • বাংলা মিরর ডেস্ক
  • ৩১,জানুয়ারী,২০২৩ ১০:২০ AM

বরেণ্য চিত্রশিল্পী এস এম সুলতান পদক- ২০২২ পেলেন চিত্রশিল্পী শহিদ কবীর তালুকদার। নড়াইলের সুলতান মঞ্চে শুক্রবার  এ পদক দেওয়া হয়। 

নড়াইল জেলা প্রশাসন ও শিল্পী এস.এম সুলতান ফাউন্ডেশন এবং বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি চিত্রশিল্পী এস.এম. সুলতানের ৯৯তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে ‘সুলতান মেলা’ আয়োজন করেছে। নড়াইলে ৭-২০ জানুয়ারি ২০২৩ সুলতান মেলার আয়োজন করা হয়। 

আগের মতো সমাপনী দিনে প্রদান করা হয় ‘সুলতান পদক-২০২২’। 

এবছর বরেণ্য চিত্রশিল্পী শহিদ কবীর তালুকদারকে পদক দেবে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী।  এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির চারুকলা বিভাগের পরিচালক সৈয়দা মাহবুবা করিম। ’ 

২০০১ সাল থেকে প্রতিবছর সুলতান মেলার সমাপনী দিনে দেশের একজন গুণী চিত্রশিল্পীকে ‘সুলতান পদক’ দিয়ে আসছে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী। ইতোপূর্বে শিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী, শিল্পী মর্তুজা বশীর, শিল্পী রফিকুন নবীসহ ১৯ জন বরেণ্য শিল্পীকে সুলতান পদক দেওয়া হয়েছে। করোনা মহামারির কারণে গত দুই বছর পদক দেওয়া হয়নি। পদকপ্রাপ্ত শিল্পীকে একটি স্বর্ণের মেডেল ও সনদপত্র দেওয়া হবে। 

বরেণ্য চিত্রশিল্পী শহিদ কবীরের জন্ম ১৯৪৯ সালের ২৬ অক্টোবর। ১৯৬৯ সালে ঢাকায় গভর্মেন্ট কলেজ অব আর্টস অ্যান্ড ক্রাফটস (বর্তমানে চারুকলা অনুষদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়) থেকে বিএফএ সম্পন্ন করেন তিনি। ১৯৭৩ সালে একই প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। প্রতিষ্ঠানটিতে শিক্ষকতা করেন ১৯৮০ সাল পর্যন্ত। 

১৯৭২ সালে প্রথম শহিদ কবীরের এককচিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয় জয়নুল গ্যালারিতে। ১৯৭৫ সাল থেকে ১৯৮০ সাল পর্যন্ত এগ টেম্পারা মাধ্যমে ফকির লালন সাঁইয়ের জীবন ও দর্শনে অনুপ্রাণিত হয়ে চিত্রকর্ম আঁকেন তিনি।   

এসব চিত্রকর্ম নিয়ে ১৯৮০ সালে একক চিত্র প্রদর্শনী জয়নুল গ্যালারিতে অনুষ্ঠিত হয়। প্রদর্শনীর সময় শিল্পরসিকদের কাছে ব্যাপকভাবে সমাদৃত হয়েছিলেন তিনি।  ওই বছরই তিনি স্পেন নিবাসী হন। 

মাদ্রিদে বিখ্যাত স্প্যানিশ চিত্রশিল্পীদের ছাপচিত্রের প্লেট তৈরি ও মুদ্রণ করে জীবিকা নির্বাহ করতেন চিত্রশিল্পী শহিদ কবীর। পাশাপাশি তিনি নিজস্ব শিল্পভাষা অনুসন্ধান করে চিত্রকর্ম আঁকতে নিবিষ্ট হন। এরপর ১৯৯৭ সালে গ্যালারি শিল্পাঙ্গনে তার একক চিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়। সর্বশেষ ২০১৪ সালে বেঙ্গল গ্যালারিতে চিত্রশিল্পী শহিদের একক প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়। 

এ পর্যন্ত দেশ-বিদেশে ১২টি একক চিত্র প্রদর্শনী ছাড়াও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ যৌথ প্রদর্শনীতে অংশ নিয়েছেন তিনি। 

১৯৬৯ সালে গণআন্দোলনের স্বপক্ষে তৎকালীন চারুকলার ছাত্রাবাসে সহপাঠীদের সঙ্গে পোস্টার এঁকে জনমত তৈরিতে ভূমিকা রেখেছিলেন বরেণ্য চিত্রশিল্পী শহিদ কবীর। ১৯৭১ সালে গোপনে সাইক্লোস্টাইল মেশিনে লিফলেট মুদ্রণ করে মুক্তিযোদ্ধাদের অনুপ্রাণিত করতেন তিনি। 

এর আগে চিত্রশিল্পী শহিদ কবীর কারমেন আরওজামেনা অ্যাওয়ার্ড, মাদ্রিদ, স্পেন; শিল্পকলা পদক, শিল্পগুরু সফিউদ্দীন আহমেদ জন্মশতবার্ষিকী সম্মাননা-২০২২, জয়নুল সম্মাননা, কিবরিয়া আজীবন সম্মাননা পুরস্কারও পেয়েছেন।

সম্পর্কিত খবর

কোনো সম্পর্কিত খবর পাওয়া যায়নি