ইমপ্রুভমেন্ট ও ইয়ার গ্যাপধারীদের মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা বহালের দাবিতে মানববন্ধন

Mar 9, 2023 - 19:27
Mar 9, 2023 - 19:29
 0  16
ইমপ্রুভমেন্ট ও ইয়ার গ্যাপধারীদের মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা বহালের দাবিতে মানববন্ধন

ইমপ্রুভমেন্ট ও ইয়ার গ্যাপধারীদের মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা বহালের দাবিতে মানববন্ধন করেছে একদল মেডিকেল ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী। 

আজ ৯ মার্চ  (বৃহস্পতিবার) বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি ) রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে এই বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধনের আয়োজন করে সাধারণ মেডিকেল ভর্তিচ্ছু ইমপ্রুভমেন্ট ও ইয়ার গ্যাপধারী শিক্ষার্থীরা। 

শিক্ষার্থীদের দাবি অনুযায়ী, আগামীকাল ১০ মার্চ সকাল ১০ মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা হলেও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের একটি বিজ্ঞপ্তি প্রদানের ফলে দীর্ঘ এক বছর ধরে মেডিকেল প্রস্তুতি নেয়া শিক্ষার্থীরা পরীক্ষায় বসার অযোগ্য বলে বিবেচিত হয়। ফলে তারা এক হাজার টাকা দিয়ে ভর্তির আবেদন সত্ত্বেও পরীক্ষার এডমিট কার্ড উত্তোলন করতে পারেনি। ফলে নিজেদের অন্ধকার ভবিষ্যতের চিন্তা করে ঢাবির রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে একদল শিক্ষার্থী আন্দোলনের মাধ্যমে নিজেদের মতামত স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বরাবর উপস্থাপন করেন।

কাজী নজরুল সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী মোসাঃ হিম বলেন,  আমাদের আগামীকাল ১০ মার্চ সকালে পরীক্ষা আমরা ইন্টারে ইয়ার গ্যাপ দিয়েছি কেউ খারাপ রেজান্টের জন্য কেউ বা অসুস্থতার জন্য, কারো বাবা/মা  মারা গিয়েছে বলে। কারণ ছাড়া আমরা কেউ ইয়ার গ্যাপ দেইনি। কিন্তু পরে এক্সাম দিয়ে ভালো রেজাল্ট করে দেখছি মেডিকেল এক্সামই দিতে পারবো না। আমরা গত এক মাস ধরে হাইকোর্ট, সুপ্রিম কোর্টে আসা যাওয়া করেছি, কিন্তু কাজ হয়নি। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অযৌক্তিক সিদ্ধান্তের জন্য হাজারো শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিতে পারছে না। অনেকে পরীক্ষার জন্য আবেদন করেছে, কিন্তু পরবর্তীতে স্বাস্থ্যঅধিদপ্তর ঘোষণা দেয় ইম্প্রুভমেন্ট ও ইয়ার গ্যাপ ধারীরা পরীক্ষায় বসতে পারবে না। তাদেরকে এডমিট কার্ডও দেয়া হয়নি। আমাদের পরীক্ষায় বসে নিজেদের যাচাইয়ের সুযোগও দেওয়া হচ্ছে  না।

আরেক শিক্ষার্থী আরমান হক অপু হলেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর পূর্ববর্তী নির্দেশনা ছাড়াই হুট করে সিদ্ধান্ত নেয়ায় আমাদের হাজারো শিক্ষার্থী এতদিন প্রিপারেশন নিয়ে বেকার পড়ে আছে। যেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রিপারেশন নিলে একজন শিক্ষার্থী সকল বিশ্ববিদ্যালয় এবং ইঞ্জিনিয়ারিং বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষা দিতে পারে , সেখানে আমরা এক বছর পড়ে আমাদের মেডিকেল বা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার পথ রুদ্ধ হয়ে গেছে।

আফিয়া জান্নাত তিশা বলেন, গত একটা বছর ধরে আমরা প্রিপারেশন নিয়েছি। এক হাজার টাকা দিয়ে আবেদন করেছি কিন্তু আমাদের এডমিট কার্ডও দেয়া হয়নি। আমাদের একটি বছর ফিরিয়ে দিতে পারবেন! আপনারা সিট কমান, সেটা ভিন্ন কথা, আমরা পরীক্ষায় বসে চান্স না পাই সেটা ভিন্ন কথা কিন্তু আমরা পরীক্ষায় বসার সুযোগ না দিয়েই তারা আমাদের এক বছরের কষ্ট, পরিশ্রমকে নষ্ট করে দিয়েছে। তাই আমাদের একটাই দাবি থাকবে ইম্প্রুভমেন্ট ও ইয়ার গ্যাপ থাকা সত্ত্ব্বেও যেনো আমাদের পরীক্ষায় বসতে দেয়া হয়।

এসময় তারা ইমপ্রুভমেন্ট ও ইয়ার গ্যাপ শিক্ষার্থীদের পক্ষে কয়েকটি দাবি উত্থাপন করেন।
১। মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা ২০২২-২০২৩ শিক্ষবর্ষের সার্কুলার অনুযায়ী অনুচ্ছেদ ২নং এর (ক) তে বলা হয়েছে যে, এইচএসসি/সমমান পরীক্ষার পাসের পূর্ববর্তী ২ বছরের মধ্যে এসএসসি/সমমান পরিক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে। বিগত বছর গুলোতে মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় এইচএসসি/সমমান পরীক্ষার পাসের পূর্ববর্তী ৩ বছরের মধ্যে এসএসসি/সমমান পরিক্ষায় উত্তিন্ন হতে হবে বিষয়টি উল্লেখ করা ছিলো। এতে করে যাদের কোনা শারিরীক সমস্যা, এক্সসিডেন্ট অথবা অন্য কোন সমস্যার কারণে পরীক্ষা দিতে না পারায় ইয়ার গ্যাপ দিয়েছে এবং অনেকে পরীক্ষা দিয়ে আশানুরুপ ফলাফল না পেয়ে পূর্ন রায় পরিক্ষা দিয়েছে। কিন্তু ২০২২-২০২৩ সার্কুলার অনুযায়ী সেকেন্ড টাইমাররা পরীক্ষা দিতে পারলেও ইম্প্রভার বা ইয়ার গ্যাপ পরীক্ষা দিতে পারবে না।
২. বিগত বছরগুলোতে এসএসসি ও এইচএসসি পাসের মধ্যকার গ্যাপকে মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় অযোগ্যতা ধরা হতো না।
৩। এসএসসি ও এইচএসসি পাসের মধ্যকার গ্যাপকে কোন অবস্থাতেই মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় আবেদনের অযোগ্যতা ধরা যাবে না।
৪। এসএসসি পাসের পরবর্তী ২ বছরে মধ্যে কোন কারণে এইচএসসি পাস করতে না পারা তার মোটেই অযোগ্যতা নয়।।
৫। একজন ছাত্র বা ছাত্রী অবশ্যই যেন এইচএসসি পাসের পরে সব ক্ষেত্রে আবেদনের সুযোগ পায় ।
৬। একজন ছাত্র বা ছাত্রী প্রথম বার এইচএসসি রেজাল্ট খারাপ করা মানে এটা নয় যে পরবর্তীতে কাঙ্খিত রেজাল্ট করতে পারবে না।
৭। যদি আবেদনের ক্ষেত্রে ব্রেক অপ স্টাডি ধরতে হয় তাহলে সেটা অবশ্যই এইচএসসি পাসের পরবর্তী বছর থেকে ধরতে হবে।
৮। চলতি বছরে মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় এইচএমসি ইম্প্রুভমেন্ট ধারীদের ১০০০/- (এক হাজার) টাকা ফি সহ আবেদন গ্রহণ করা সত্ত্বেও ভর্তি পরীক্ষার প্রবেশ পত্র না দেওয়া শিক্ষা বিভাগের এই সিদ্ধান্ত সম্পূর্ণ অমানবিক ও অনৈতিক।

What's Your Reaction?

like

dislike

love

funny

angry

sad

wow