বরিশাল ছাত্রলীগে এখন সবাই সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক!

Jul 12, 2023 - 16:44
Jul 12, 2023 - 16:48
 0  396
বরিশাল ছাত্রলীগে এখন সবাই সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক!
বরিশাল ছাত্রলীগে এখন সবাই সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক!
বরিশাল ছাত্রলীগে এখন সবাই সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক!
বরিশাল ছাত্রলীগে এখন সবাই সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক!

বরিশাল মহানগর ছাত্রলীগের বিভিন্ন ইউনিট, ওয়ার্ডের ও বি এম কলেজ ছাত্রলীগের বিভিন্ন স্তরের নেতা-কর্মীরা নিজেদের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক দাবি করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে পোস্ট করছেন।

তবে এসব দাবি ভিত্তিহীন, হাস্যকর ও গুজব বলে দাবি করেছেন সংগঠনটির কেন্দ্রীয় ও মহানগরীর নেতৃবৃন্দ।

জানা যায়, বুধবার দিবাগত রাতে অন্তত ডজন খানেক ব্যক্তি নিজেদের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক  দাবি করে ফেইসবুকে পোস্ট করেছেন। এছাড়া এদের সমর্থকরাও বিভিন্ন জায়গায় তাদের বি এম কলেজ, হাতেম আলী কলেজ ও বরিশাল মহানগরীর নেতা নির্বাচিত হয়েছেন জানিয়ে অভিনন্দন জানান।

এদের মধ্যে, এস এম ইমামুজ্জামান ইভান, মাহামুদুল হোসান সেতু, এস এম সাউথ ইসলাম, আরফিন সাগর, ইউসুফ ইসলাম, আবু সায়েম, হাওলাদার মো. তাওহীদুল ইসলাম, নেয়ামত শুভ, শিপন হোসাইন মোল্লা অন্যতম।

 একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, ব‌্যাক ডেট অর্থাৎ পেছনের তারিখ দেখিয়ে বরিশাল মহানগরের বিভিন্ন ইউনিটের কমিটি গঠন করে তা ঘোষণার পাঁয়তারা চলছে বলে অভিযোগ উঠেছে সদ‌্য বিলুপ্ত মহানগর ছাত্রলীগের কমিটির বিরুদ্ধে।

ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা জানিয়েছেন, বরিশাল সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রচার-প্রচারণার সময় নৌকার কর্মীকে মারধরের অভিযোগে গ্রেপ্তার হন তৎকালীন মহানগর ছাত্রলীগের আহ্বায়ক রইজ আহম্মেদ মান্না। এর পরপরই মহানগর ছাত্রলীগের ওই কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করে কেন্দ্র। নির্বাচন শেষে রইজ আহম্মেদ মান্না কারামুক্ত হন। তিন মাস মেয়াদের আহ্বায়ক কমিটি গত বছরের ২৩ জুলাই গঠিত হলেও কোনো ইউনিট কমিটি গঠন করতে পারেননি তারা। কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণার পর এখন পেছনের তারিখে কলেজ ও ওয়ার্ড কমিটি ঘোষণার পাঁয়তারা করছেন মান্না।

ড্রাফটও করা হয়ে গেছে বিএম কলেজসহ গুরুত্বপূর্ণ ইউনিটগুলোর কমিটির। নাম প্রকাশ না করার শর্তে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন বরিশাল সিটি করপোরেশনের বর্তমান মেয়র সাদিক আব্দুল্লাহর একাধিক ঘনিষ্ঠ অনুসারী।

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ ওয়ালী আসিফ ইনান বলেন, আসলে এভাবে কমিটি গঠন করাটা অবাস্তব। বাংলাদেশে ছাত্রলীগের এমন কোনো নজির নেই যে বিলুপ্ত হওয়া কমিটি ব‌্যাক ডেট দিয়ে তাদের অন্তর্ভুক্ত কমিটি ঘোষণা করে। এরকমটা যদি বরিশালে হয়ে থাকে তাহলে তদন্ত করে যাদের জড়িত পাওয়া যাবে তাদের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ কঠোর ব‌্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

What's Your Reaction?

like

dislike

love

funny

angry

sad

wow